শ্রীলেখাকে হেনস্থার প্রতিবাদে পাশে দাঁড়ালেন অভিনেত্রী দিতিপ্রিয়া, জানলেন কুকুরদের সুরক্ষার আর্জি, ভাইরাল ভিডিও

0

আধুনিক যুগে বিনোদনের আরেক নাম নেট দুনিয়া বা সোশ্যাল মিডিয়া। এই নেট দুনিয়া বর্তমানে আমাদের কাছে এক গুরুত্বপূর্ণ বিনোদনের মাধ্যম হয়ে উঠেছে। এই সোশ্যাল মিডিয়া থেকেই আমরা বর্তমানে খেলাধুলা থেকে শুরু করে খবরাখবর নিমিষেই উপভোগ করতে পারি।

এমনকি এই নেট মাধ্যমের ফলে আমরা রানু মন্ডল, চাঁদমনি হেমব্রম এবং বিপাশা দাস সহ আরো বহু প্রতিভাবান ব্যক্তিত্বকে আমাদের মাঝে পেয়েছি। এমনকি এই সকল প্রতিভাবান মানুষজনের প্রতিভার ভিডিও প্রথমে এই সোশ্যাল মিডিয়াই আমাদের কাছে পৌছে দিয়েছে।

এছাড়া বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের পূর্বাভাস আমরা এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে নিমিষে পেয়ে যাই, যার ফলে আমরা আগে থেকে সতর্কতা অবলম্বন করতে পারি। এছাড়া এই নেট দুনিয়ার মাধ্যমে আমরা বিভিন্ন অজানা কথা থেকে শুরু করে বিভিন্ন অজানা তথ্য নিমিষের মধ্যেই জানতে পারি।

এক কথায় সোশ্যাল মিডিয়ার অবদান আমাদের জীবনে অনস্বীকার্য। বর্তমানে টলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রকে বারবার হেনস্থার শিকার হতে হচ্ছে। শ্রীলেখা পথকুকুরদের যত্ন নেন, তাদের খাওয়ান শুধু নয়, সাধ্যমতো তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।

কিন্তু তিনি যে আবাসনে থাকেন, সেই আবাসনের কিছু বাসিন্দাদের অপছন্দ শ্রীলেখার পথকুকুরদের প্রতি যত্ন নেওয়া। সাম্প্রতিক ভাইরাল হাওয়া একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, শ্রীলেখার পোষ‍্য কুকুরদের বিষ খাইয়ে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

কিন্তু যখন আবাসনের বাসিন্দারা বুঝতে পেরেছেন যে শ্রীলেখা ফেসবুক লাইভ করছেন, তখনই তাঁরা তাদের মত একেবারেই পাল্টে বলতে শুরু করেছেন যে তাঁরা কুকুরদের বিষ খাওয়ানোর কথা বলেননি। শ্রীলেখার পক্ষে বেশির ভাগ নেটিজেন তাদের মত প্রকাশ করেছেন।

এবার তাঁর পাশে দাঁড়ালেন অভিনেত্রী দিতিপ্রিয়া রায়। অভিযাত্রিক’ সিনেমায় একসঙ্গে কাজ করার সূত্রে দিতিপ্রিয়া ও শ্রীলেখা পরস্পরকে চেনেন। দিতিপ্রিয়া নিজেও একজন কুকুর-প্রেমী। শ্রীলেখার সঙ্গে ঘটে যাওয়া ঘটনার কারণে রীতিমত মর্মাহত তিনি।

নিজের টাইমলাইনে একটি ভিডিও শেয়ার করে দিতিপ্রিয়া সমস্ত পশু প্রেমীদের একজোট হতে বলেছেন। ভিডিওটিতে দিতিপ্রিয়া বলেছেন, তিনি বেশ কিছুদিন ধরে শ্রীলেখার প্রতি হেনস্থার ঘটনা দেখতে পাচ্ছেন। তিনি জানেন, শ্রীলেখা কুকুরদের জন্য অনেক পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।

২০১৯ সাল থেকে শ্রীলেখাকে চেনেন দিতিপ্রিয়া। তিনি ভালোবেসে কুকুরদের খাবারের ব্যবস্থা করছেন বলে তাঁর আবাসনের বাসিন্দারা তাঁকে নানাভাবে হেনস্থা করছে। এমনকি কুকুরদের বিষ খাইয়ে হত্যা করে ফেলার হুমকি দিয়েছেন।

এই মুহূর্তে ব্যাপারটি যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ অবস্থায় পৌঁছে গিয়েছে। দিতিপ্রিয়ার মতে, এবার সমস্ত ডগ লাভারদের একজোট হয়ে ঘটনাটির প্রতিবাদ করা উচিত। তাদের জন্য কথা বলা উচিত, যারা কথা বলতে পারে না। শ্রীলেখা কুকুরদের পাশে থাকলেও তাঁর পাশে কারা আছেন?

এই প্রশ্ন তুলেছেন দিতিপ্রিয়া। যাঁরা কুকুর ভালোবাসেন, তাঁদের শ্রীলেখার পাশে দাঁড়াতে হবে বলে মনে করেন তিনি। দিনের পর দিন হেনস্থা হচ্ছেন শ্রীলেখা। এবার তা বন্ধ হওয়া উচিত। দিতিপ্রিয়া সকলকে অনুরোধ করেছেন, শ্রীলেখার পাশে দাঁড়িয়ে এই বর্বরতাকে শেষ করা উচিত।

কারণ আজ যা শ্রীলেখাকে সহ্য করতে হচ্ছে, কাল তা অন্য কাউকে সহ্য করতে হতে পারে। গত শুক্রবার ঘটনাটির লাইভ করার পর আরেকটি লাইভে এসে কেঁদে ফেলেন শ্রীলেখা। তিনি বলেন, অনেক কষ্ট করে তিনি এই আবাসনটি কিনেছেন। কিন্তু তাঁকে এখানে খারাপ ভাবে স্পর্শ করা হচ্ছে, তাঁকে পাগল বলা হচ্ছে।

তাঁর কুকুরদেরকে বিষ খাওয়ানোর হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি তাঁর বাড়ির বাইরে নোংরা আবর্জনা ফেলার কথা বলা হচ্ছে। শ্রীলেখার মনে হচ্ছে, তিনি নেতিবাচকতার কাছে হেরে গিয়েছেন। এমনকি শ্রীলেখা বর্তমান আবাসনটি বিক্রয় করে অন্য কোথাও গিয়ে থাকার কথা ভেবেছেন।