অদ্ভুত ঘটনা! এবার এক সাংবাদিক একটি মহিষের ইন্টারভিউ নিয়ে সকলকে অবাক করলো, ভাইরাল ভিডিও

0

বিজ্ঞান যতবারই সাফল্যে পেয়েছে ঠিক ততবারই প্রযুক্তি এগিয়েছে, তৈরি হয়েছে বহু মাধ্যম। আগে কোনো খবর,খেলাধুলা, গান বাজনা সবটাই জনপ্রিয় হতো রেডিওর মাধ্যমে শুনে, তারপর বিজ্ঞানের সাফল্যের সাথে সাথে রেডিওর বদলে এলো টেলিভিশন এক কথায় যাকে আমরা টিভি বলি। বর্তমান যুগে বিজ্ঞান এখন অগ্রগতির শিখরে।

এই অগ্রগতির যুগে একমাত্র বিজ্ঞানই ছুঁয়েছে সাফল্যের শিখর। মানুষ তার বুদ্ধিমত্তা দিয়ে সব জটিল মাধ্যমগুলোকেই হাতের মুঠোয় আনতে সফল হয়েছে। মানুষ এখন জটিল থেকে জটিলতর কাজ করে ফেলতে পারে এক মুহুর্তের মধ্যে। আর স্মার্টফোন মানেই সোশ্যাল মিডিয়া। আর সোশ্যাল মিডিয়া মানেই প্রতিদিন কিছু না কিছু ভাইরাল হচ্ছেই।

কয়েক বছর আগেও অবধি ও এই শব্দটা মানুষের কাছে এতটা জানা ছিল না। কিন্তু এখন ভাইরাল মানেই সবার একটা দেখা বা জানার অত্যন্ত প্রবল ইচ্ছা। নানা রকম কাণ্ডে ভরে থাকছে সোশ্যাল মিডিয়া। আগে একটা সময় ছিল যখন মানুষজন দেশের প্রতিদিনের খবর পাওয়ার জন্য নির্ভরশীল ছিল টিভির ওপরে। কিন্তু এখন ইন্টারনেটের দৌলতে সব খবরই এখন আমাদের হাতের মুঠোয়।

বাড়িতে বসে মোবাইল ফোনেই দেখতে পাই আমার সেসব ।আমাদের জীবনে এক এবং অদ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় এখন দখল করেছে সোশ্যাল মিডিয়া। আজ থেকে ২০ বছর আগে অবধি ও একটা সময় ছিল যখন মানুষজন প্রতিদিনের খবর পাওয়ার জন্য নির্ভরশীল ছিল টিভির ওপরে। সময় এমন একটা শব্দ, যা প্রতিনিয়ত বদলায়।

তবে এখন ইন্টারনেটের দৌলতে সব খবরই এখন আমাদের হাতের মুঠোয়। বাড়িতে বসে মোবাইল ফোনেই দেখতে পাই আমার সেসব । ইন্টারনেট এখন যেনো মানুষের সমস্ত ভাবনা চিন্তাকে নিয়ন্ত্রণ করছে। মোবাইল খুললেই যেন একটা অন্য পৃথিবী। কখনো কোন বয়স্ক মহিলার অসাধারন নাচের ভিডিও আবার কখনো কোন শিশুর রান্না করার ভিডিও ভাইরাল হচ্ছে।

তবে এবার ভাইরাল হলো একটি বড়ই অদ্ভুত ভিডিও। ভিডিওটা একটা মহিষকে নিয়ে।এবার এক মহিষের ইন্টারভিউ আলোচনার জন্ম দিয়েছেন তিনি। এতে রীতিমতো ভাইরালও হয়ে গেছে এই ভিডিও। তবে এই ভিডিও টা কে বানিয়েছে জানেন ?তিনি আর কেউ নন। তিনি হচ্ছেন পাকিস্তানের সাংবাদিক আমিন হাফিজ।আলোচনার জন্ম দিতেই যেন ভালোবাসেন তিনি।

তার সাংবাদিকতা অনেককেই বহুবার হাসিয়েছে। কিন্তু দমে যাননি তিনি। বিশেষত কুরবানী জন্যই মহিষ কে নিয়ে আসা হয়েছে। আর সেই মহিষেরই ভিডিও বানিয়েছে জনপ্রিয় সাংবাদিক।এই কুরবানির জন্য শহরে এসে তার কেমন লাগছে এমন অনুভূতিই তিনি একটি মহিষের কাছে জানতে চেয়েছেন।হাফিজ বলেন, হ্যাঁ, আপনি বলুন,

লাহোরে এসে আপনার কেমন লাগছে? এরপর ছোট একটি মাইক মহিষটির সামনে ধরেন হাফিজ। তখন মহিষটি ডেকে ওঠে। হাফিজ তখন সেটাকেই ‘হ্যাঁ’ বলে ব্যাখ্যা করেন।তিনি বলেন, মহিষটির লাহোর পছন্দ হয়েছে। এরপর তিনি মহিষটির কাছে আবারও জিজ্ঞাসা করেন, আপনার কাছে লাহোর নাকি গ্রামের খাবার কোনটা বেশি পছন্দ?

এসময় মহিষটি আবারও ডেকে ওঠে। তখন হাফিজ বলেন, হ্যাঁ। মহিষটির লাহোরের খাবার পছন্দ হয়েছে।তবে এবারই প্রথম নয়। এর আগেও সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোচনার ঝড় তুলেছিলেন হাফিজ। তবে এবারটা যেন একেবারেই অদ্ভুত বিষয় নিয়ে ভাইরাল হয়েছেন তিনি।