এবার লাইভে এসে তার ছেলের জন্য সকলের কাছ থেকে আশীর্বাদ চাইলেন অভিনেত্রী নুসরাত জাহান, ভিডিও ভাইরাল

0

আগামী সেপ্টেম্বরেই মা হতে চলেছেন সাংসদ ও অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। আর পাঁচ দিন পরই মা হবেন এই অভিনেত্রী। প্রথম দিকে নিজে না জানালেও পরে নিজের মা হওয়ার গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে টালি পাড়ায়। তবে গত রোববার ফেসবুক লাইভে এসে নুসরাত নিজেই তার সন্তান সম্ভবা হবার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। যদিও এখনও গোপনে সেই সন্তানের পিতৃ পরিচয়।

গত (২৫ জুলাই) সন্ধ্যায় পরিচালক সুদেষ্ণা রায়ের সঙ্গে ‘সুবিধা’ গর্ভনিরোধক ওষুধের ফেসবুক পেজ থেকে লাইভে ছিলেন তিনি। ফেসবুক লাইভে অনাগত সন্তান ছেলে না মেয়ে নিশ্চিত না করলেও লাইভে গর্ভনিরোধক ওষুধ সংক্রান্ত নানা আলাপ-আলোচনার মাঝে নুসরাতের মুখে বারবার শোনা যায় নারীদের ক্ষমতায়নের কথা।

লাইভে নুসরাত জানিয়েছেন- ‘আমার মেয়ে হলে তাঁকে শেখাব যাতে কারও কাছে কখনও মাথা নত না করে’।আবার পরক্ষণেই বলেন, ‘ছেলে হলেও এটাই শেখাব। একজন মানুষ হিসেবে নিজের শর্তে বাঁচা খুব জরুরি। সমাজ কী বলল বা কী ভাবল তার ভয়ে নয়। সবার আগে তাই নিজেকে ভালোবাসতে হবে। যশের সামনে বেয়ারা দিয়ে গেলেন হট চকোলেট। তারপর গভীর কথোপকথনে ব্যাস্ত হলেন দুজনেই।

প্রায় দেড় ঘণ্টা এমন ভাবেই চলল। প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ১৯ জুন নুসরত জাহান রঙ্গোলি ব্র‌্যান্ডের কর্ণধার নিখিল জৈনের সঙ্গে তুরস্কে ডেস্টিনেশন ওয়েডিং হয়। কিন্তু বছর ঘুরতে না ঘুরতেই নিখিলের সঙ্গে আলাদা থাকতে শুরু করেন নুসরত। তবে নিখিল জৈন তাঁদের আলাদা থাকার খবর সবার আগে নিশ্চিত করেছিলেন। তবে নুসরাত পরে অনলাইন বিবৃতিতে জানান ‘নিখিলের সঙ্গে আমি সহবাস করেছি। বিয়ে নয়।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Nusrat (@nusratchirps)

ফলে বিবাহ-বিচ্ছেদের প্রশ্নই ওঠে না’। কয়েক দিন আগেই নুসরতের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার খবর তোলপাড় ফেলেছিল। ‘স্বামী’ নিখিলের সঙ্গে তাঁর দূরত্বের কথাও কারও অজানা নয়। নুসরতের বিবৃতিতে তিনি বললেন নিখিলের সঙ্গে তাঁর বিয়েই হয়নি। তাই নিয়ে আরও তোলপাড়। তা হলে কি সাংসদ নুসরত পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে নিজের ম্যারিটাল স্টেটাস সম্পর্কে মিথ্যে বলেছেন।

নিখিলের বিবৃতি বলে, তুরস্কে হওয়া বিয়েকে নাকি নুসরত মান্যতাই দিতে চাননি এদেশে। তাই নিয়েই অশান্তি চরমে ওঠে।২০২০ সালে লকডাউন শিথিল হওয়ার পর ছবি তৈরির অনুমতি আসে। নুসরত ও যশ অভিনীত ‘এসওএস কলকাতা’র শুটিং। সেখানে নাকি যশের প্রতি দুর্বল হয়ে পড়েন নুসরত। তাঁর ব্যবহারেও লক্ষ্য করা যায় পরিবর্তন। এমনটা নিখিল লিখেছিলেন তাঁর বিবৃতিতে।ফলে বিষয়টাদিন দিন আরও বেশি জটিল হয়ে যাচ্ছে আর নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না।