“নুসরাতের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে আগ্রহ না দেখিয়ে কাজ নিয়ে আগ্রহ দেখালে বাংলা বেঁচে যেত”, মন্তব্য কমরেড দীপ্সিতা ধরের

0

বর্তমানে রাজ্যে সব থেকে চর্চিত নাম নুসরত জাহান। নুসরত-নিখিল বিবাদ বেশ কয়েকদিন ধরেই ঝড় তুলেছে।

সেই ঝড় এবার আছড়ে পড়েছে রাজনৈতিক আঙিনাতেও। অভিনেত্রী -সাংসদ নুসরতকে নিয়ে তোলপাড় রাজ্য।

তাঁর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে একের পর চাঞ্চল্যকর তথ্য গোগ্রাসে গিলছেন মানুষ। কবে তাঁর ডিভোর্স, কবে তিনি মা হবেন?

নিখিল জৈনের সঙ্গে তাঁর বর্তমান সম্পর্ক এই সব নিয়ে মাথাব্যথার শেষ নেই। সাধারণ মানুষের এই মানসিকতাকেই এবার কটাক্ষ করলেন বামপন্থী নেত্রী দিপ্সীতা ধর।

গত কয়েকদিন যাবৎ নুসরতের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে আগ্রহ দেখে দীপ্সিতা আর থাকতে না পেরে এবার ফেসবুকে লিখলেন নুসরতের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে,

এত আগ্রহ না দেখিয়ে যদি এম.পি.নুসরতের কাজ নিয়ে সবাই আগ্রহ দেখাতেন, তাহলে খুব ভালো হত। তাঁর মতে, নুসরত কাজ করলে বাংলাও বেঁচে যেত।

অন্তত তাঁর মন্তব্য পড়ে নেটিজেনদের তাই মনে হয়েছে। কারণ এরপরেই নেটিজেনদের একাংশ লিখতে শুরু করেছেন, “যে জিনিসের অস্তিত্ব নেই তা নিয়ে তাঁদের আগ্রহ নেই”।

দিপ্সীতার দাবি, কোনও একজন জননেতা বা নেত্রী মানুষের জন্য কী কাজ করছেন, তা জানতে না চেয়ে, তাঁর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কাটাছেঁড়া চলছে।

অথচ সেটা হওয়ার কথা নয়। সাংসদ নুসরত আদৌও কোনও কাজ মানুষের জন্য করেছেন কীনা, সে বিষয়ে বেশি ভাবনা চিন্তা করা উচিত।

ব্যক্তিগত জীবনটা তাঁর পরিসরের আওতায়, সেখানে সাধারণ মানুষের প্রবেশ অনধিকার চর্চা। কিন্তু তাঁর রাজনৈতিক জীবন বা সাংসদ হিসেবে তাঁর ভূমিকা কী,

তা খতিয়ে দেখার অধিকার রয়েছে মানুষের। যদিও সাংসদ নুসরত কী করেছেন সাধারণ মানুষের জন্য, তা নিয়ে প্রশ্ন থাকছে।

দীপ্সিতার ফেসবুক পোস্টের কমেন্ট বক্সে তৈরী হয়েছে অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি। নুসরত প্রসঙ্গ থেকে এখনও অবধি চাল চুরি, ত্রিপল চুরি, বিগত দশ বছরের ভোট,

ভারতীয় সংবিধান, আইন, মিডিয়া, মনুষ্যত্ব কোনো কিছু নিয়েই মতামত বাদ নেই। বোঝা যাচ্ছে, সপ্তাহান্তে আপাতত এই পোস্ট নিয়েও যথেষ্ট কথা চলবে।

কিন্তু এখনও অবধি কেউই এটা বুঝতে পারেননি দীপ্সিতার মন্তব্য ইতিবাচক ছিল না নেতিবাচক ছিল!